মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩১st জানুয়ারি ২০১৭

কর্ম পদ্ধতি


            সরকার কর্তৃক গেজেট বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বেসরকারী নির্দিষ্ট কোন শিল্প সেক্টরের মালিক ও শ্রমিকপক্ষের সদস্য মনোনয়নর্পূবক এই বোর্ডকে অবহিত করারপর বোর্ডের চেয়ারম্যান বিধি অনুযায়ী সভা আহবানের মাধ্যমে কার্যক্রম শুরম্ন করেন।  ব্যক্তিমালিকানাধীন বা বেসরকারী নির্দিষ্ট কোন শিল্পের সার্বিক অবস্থা, শ্রমিকদেরজীবনযাপন ব্যয়, জীবনযাপনের মান, উৎপাদন খরচ, উৎপাদনশীলতা, উৎপাদিত দ্রব্যের মূল্য, মুদ্রাস্ফীতি, কাজের ধরণ, ঝঁুকি ও মান, ব্যবসায়িক সামর্থ, দেশেরএবং সংশ্লিষ্ট এলাকার আর্থ-সামাজিক অবস্থা এবং অন্যান্য প্রাসঙ্গিক বিষয় বিবেচনাপূর্বক এবং প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট শিল্প পরিদর্শণপূর্বক প্রাপ্ত বিভিন্ন তথ্য বিশ্লেষণ করিয়াসভায় উপস্থিত সকল/সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে শ্রমিক কর্মচারীদের নিম্নতম মজুরী হারের খসড়া সুপারিশ গেজেট বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সাধারণের/সংশ্লিষ্টসকলের অবগতির জন্য প্রচার করা হয়। খসড়া সুপারিশ প্রকাশের ১৪ দিনের মধ্যে প্রাপ্ত আপত্তি/সুপারিশ/মতামত ইত্যাদি বোর্ড সভায় বিবেচনা করিয়া চূড়ান্ত সুপারিশপ্রণয়নর্পূবক সরকারের নিকট সুপারিশ আকারে পেশ করা ।

 

সরকার কর্তৃক ঘোষিত নিম্নতম মজুরীর হার সম্পর্কে কোনভাবে কোন আদালতে বা কোন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রশ্ন করা বা আপত্তি উত্থাপন করা যাইবে না।
নিম্নতম মজুরী হারের পর্যায়ক্রমিক পর্যালোচনাঃ ১) শ্রম আইন, ২০০৬ এর ধারা ১৪১ এ উল্লেখিত বিষয়াদি বা অন্য কোন প্রাসঙ্গিক বিষয়ের কোন পরিবর্তনের কারণে প্রয়োজন হইলে মজুরী বোর্ড উহার কোন সুপারিশ পুনরায় পর্যালোচনা করিয়া দেখিবে এবং সরকারের নিকট শ্রম আইন, ২০০৬ এর ধারা ১৪০ এর অধীন ঘোষিত নিম্নতম মজুরী হারের কোন সংশোধন বা পরিবর্তন সুপারিশ করিবে।
তবে শর্ত থাকে যে, কোন ক্ষেত্রে কোন বিশেষ পারিপার্শ্বিক অবস্থার কারণ ব্যতীত কোন সুপারিশ উহা পেশের এক বৎসরের মধ্যে অথবা তিন বৎসর পরে উক্তরূপ পর্যালোচনা করা যাইবে না।

২) এই ধারার অধীন কোন পর্যালোচনা এবং সুপারিশ শ্রম আইন, ২০০৬ এর ধারা ১৩৯ এর অধীন তদন্ত এবং সুপারিশ বলিয়া বিবেচিত হইবে এবং এই অধ্যায়ের বিধান, যতদুর সম্‌ভব এই ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হইবে। 

 


Share with :
Facebook Facebook